wikileaks logoপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই কথা আমাকে বলেন নি। দলের মধ্যে আলোচনা হয়েছিল। আর সেই বার্তাটাই দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফ ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর আমেরিকার রাষ্ট্রদূতকে জানিয়েছিলেন। খবরঃ উইকিলিকস।

তারবার্তাটি জেমস এফ মরিয়ার্টি লিখেছিলো সোমবার, ২২শে জুন, ২০০৯ সকাল ৯টা ৪১মিনিটে। সৈয়দ আশরাফের সাথে ১/১১-এর কুশীলবদের বিচার নিয়ে কথা হয় ১৮ই জুন ২০০৯English Version

যদিও ফখরুদ্দীন-মঈনউদ্দীনের সরকার শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করার দুঃসাহস দেখিয়েছিল, এমনকি তাকে খাবারের সাথে বিষ মিশিয়ে মেরে ফেলতে চেয়েছিল, ২০০৯ সালে এসে সেই প্রচন্ড ক্ষমতাশালী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে তিনি অপারগ ছিলেন।শুধু শেখ হাসিনাই নয়, হাজারো নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করে নির্যাতন ও ক্রসফায়ার করা হয়েছিল, দুর্নীতির ভুরি ভুরি মামলা করা হয়েছিল।

আশরাফ বলেন দলের কিছু নেতা নাকি তাদের বিচার চেয়েছিল। কিন্তু শেখ হাসিনা ও বেশিরভাগ নেতাই প্রতিশোধ নেয়ার বিরোধী ছিল।

এই বক্তব্যের প্রমান পাওয়া যায় গত সাত বছরে সরকারের কর্মকান্ড দেখে। এর মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় ফখরুদ্দীন-মঈনউদ্দীনের বিচার করার সুপারিশ করলেও তা আমলে নেয়নি সরকার।

কিন্তু আশ্চর্যজনক হলেও সত্য যে, গত সাত বছরে শেখ হাসিনা কমপক্ষে সাতবার প্রকাশ্যে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াকে অসাংবিধানিক সরকার সম্পর্কে সতর্ক করেছেন। উল্লেখ্য, খালেদা জিয়াকেও তখন গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

Advertisements