ঢাকার পথে-ঘাটে আমাদের মেয়েরা কেমন আছে?


Fearless
Fearless

পান্থপথে গতকাল বিকালে হাঁটার সময় এক নারী আমার সামনে সামনে যাচ্ছিলেন। সম্ভবতঃ অফিস বা কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিরছিলেন।

আমি বারবার ডানে-বামে তাকাচ্ছিলাম আশেপাশের পুরুষদের প্রতিক্রিয়া দেখতে। কয়েকটা প্রতিক্রিয়া এরকমঃ

* কমপক্ষে দুইজন অন্য কয়েকজনকে ইশারা দিয়ে ও ডেকে মেয়েটিকে দেখার জন্য বলেছে; তাদের মুখে ছিল বিকৃত সুখের হাসি;

* একজন লুঙ্গিটা তুলে তার লিঙ্গ কচলালো;

* আরেকজন মেয়েটিকে উল্টোদিক থেকে মেয়েটিকে অতিক্রম করার সময় প্যান্টের উপর দিয়ে লিঙ্গ কচলালো;

* কয়েকজনের দুইটা দলের সবাই মেয়েটির দিকে তাকিয়ে খ্যাক খ্যাক করে হাসলো;

* চারজন ঘাড় ঘুরে তাকে দেখছিল;

* একজন তাকে অতিক্রম করার সময় নিচু গলায় কিছু একটা বললো…

নাহ, মেয়েটি কোথাও থামেনি।

আইনের চোখেঃ যেসব আচরণ যৌন হয়রানির মধ্যে পড়ে

# ধারা -৭৬, ঢাকা মহানগরী পুলিশ অধ্যাদেশ, ১৯৭৬

যদি কেহ কোনো রাস্তায় বা সাধারণের ব্যবহার্য স্থানে বা সেখান হইতে দৃষ্টিগোচরে স্বেচ্ছায় এবং অশালীনভাবে নিজ দেহ এমনভাবে প্রদর্শন করে যাহা কোনো গৃহ বা দালানের ভিতর হইতে হউক বা না হউক, কোনো মহিলা দেখিতে পায়, অথবা স্বেচ্ছায় কোনো রাস্তা বা সাধারণের ব্যবহার্য স্থানে কোনো মহিলাকে পীড়ন করে বা তাহার পথ রোধ করে অথবা রাস্তায় বা সাধারণের ব্যবহার্য স্থানে অশালীন ভাষা ব্যবহার করিয়া অশ্লীল আওয়াজ, অঙ্গভঙ্গি বা মন্তব্য করিয়া কোনো মহিলাকে অপমান বা বিরক্ত করে, তবে সেই ব্যক্তি এক বৎসর পর্যন্ত মেয়াদের কারাদন্ড অথবা দুই হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানাদন্ড অথবা উভয় প্রকার দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

# ধারা-৩৫৪, দন্ডবিধি, ১৮৬০

যে ব্যক্তি কোনো নারীর শালীনতা নষ্ট করিবার অভিপ্রায়ে বা সে তদ্দারা তাহার শালীনতা নষ্ট করিতে পারে জানিয়া তাহাকে আক্রমণ করে বা তৎপ্রতি অপরাধমূলক বলপ্রয়োগ করে সেই ব্যক্তি যেকোনো বর্ণনার কারাদন্ডে-যাহার মেয়াদ দুই বৎসর পর্যন্ত হইতে পারে বা অর্থদন্ডে বা উভয়বিধ দন্ডে দন্ডিত হইবে।

#ধারা-৫০৯

যে ব্যক্তি কোনো নারীর শালীনতার অমর্যাদা করিবার অভিপ্রায়ে এই উদ্দেশ্যে কোনো মন্তব্য করে, কোনো শব্দ বা অঙ্গভঙ্গি করে বা কোনো বস্ত্ত প্রদর্শন করে যে উক্ত নারী অনুরূপ মন্তব্য বা শব্দ শুনিতে পায় বা অনুরূপ অঙ্গভঙ্গি বা বস্ত্ত দেখিতে পায়, কিংবা উক্ত নারীর নির্জনবাসে অনাধিকার প্রবেশ করে, সেই ব্যক্তি বিনাশ্রম কারাদন্ডে-যাহার মেয়াদ এক বৎসর পর্যন্ত হইতে পারে বা উভয়বিধ দন্ডে দন্ডিত হইবে।

# ধারা-১০, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন,২০০০ (সংশোধিত ২০০৩)

যদি কোন ব্যক্তি অবৈধভাবে যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে তাহার শরীরের যে কোন অঙ্গ বা কোন বস্ত্ত দ্বারা কোন নারী বা শিশুর যৌন অঙ্গ বা অন্য কোন অঙ্গ স্পর্শ করেন বা কোন নারীর শ্লীলতাহানী করেন তাহা হইলে তাহার এই কাজ হইবে যৌন পীড়ন এবং তজ্জন্য উক্ত ব্যক্তি অনধিক ১০ বৎসর কিন্তু অনূন্য ৩ বৎসর সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডনীয় হইবেন এবং ইহার অতিরিক্ত অর্থদন্ডেও দন্ডনীয় হইবেন।

দেখি, দেখিনা: একটি যৌন সন্ত্রাসের গল্প

বাসে গনধর্ষণঃ মেয়েরা কি ধর্ষকদের ভয়ে ঘরে বসে থাকবে?

One comment

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s