আপনি শোধরাবেন না, কারন আপনি ক্ষমা পাবেন


ধর্মই পৃথিবীর বেশিরভাগ মানুষকে পরিচালিত করে নানান আদেশ, নির্দেশনা, অনুরোধ ও লোভ দেখিয়ে, যেন তারা সততার সাথে জীবনযাপন করে।

পাশাপাশি, সব দেশই অপরাধ দমনে নিজেদের সংবিধান ও আইন-কানুন তৈরি করে।

মূলতঃ এই দুইপ্রকার বিধিনিষেধ সঠিকভাবে মেনে চলার জন্য যোগ্য বাবামা ও সুশিক্ষিত শিক্ষকরা সবসময়ই বলেন। 

কিন্তু তবু কেন ঢাকা থেকে আলাস্কা বা এন্টার্কটিকা পর্যন্ত সবখানে এত নৈতিক অবক্ষয়? কেন মানুষ নিজেকে শোধরায় না?

কারন একটাই: মানুষপ্রণীত আইন সবার জন্য সমান নয়, অর্থ্যাৎ কেউ কেউ অন্যায় করেও টাকা ও আত্মীয়তার জোরে পার পেয়ে যায়। আরেকটা হলো, ধর্মের দূর্বল দিক যেখানে বলা হয়, বিশেষ শর্তে পাপ মোচনযোগ্য!

2 comments

  1. every religion is meant for well being of mankind. they may have different way of submission but the destination is same.

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s