ভাগ্যিস প্রকৃতি কথা বলতে পারে না!


শিক্ষিত সচেতন শহুরে থেকে শুরু করে বস্তি বা গ্রামের হতদরিদ্র মানুষ পরিবেশ রক্ষার বিষয়ে এতটাই খেয়ালি যে দেশের রক্ষক যখন পরিবেশের নানা আবশ্যকীয় উপাদান ক্রমশ ধ্বংস করে তখনও তারা নির্বাক থাকে। নদী, খাল, বিল, বন, কৃষিজমি ভক্ষণ করছে যারা তাদেরকে সবধরণের সহায়তা দিতে ব্যবসাবান্ধব সরকারগুলো হুড়মুড়িয়ে পড়ে।

রাজনৈতিক এইসব সরকার দেশের সাংবিধানিক কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উদ্বুদ্ধ করে দুর্নীতি আর অনিয়ম করতে। উদাহরণ দেয়ার আর প্রয়োজন পড়ে না; চারপাশে যেরকম নগ্নভাবে ধ্বংসলীলা চলছে তাতে করে মনে হয় সবাই বুঝি ঘরে বা অফিসের ইনকিউবেটরে থাকে, তাদের দেখার বা কিছু বলার দরকার নেই! পরিবেশ দূষণের স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়টা বুঝতে নিশ্চয়ই এমএ বিএ পড়তে হয়না।

ভাগ্যিস প্রকৃতি কথা বলতে পারেনা, নইলে তার কান্নার শব্দে কোন মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারতো না!

আচ্ছা, আমরা কি জাতিগতভাবেই অপরিণামদর্শী?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s