আস্থা হারাচ্ছেন, ভোট হারাচ্ছেন হাসিনা


আজকে প্রধানমন্ত্রী বললেন মিডিয়া অনেক মিথ্যা কথা লিখে, তারা কিছু বলেন না। আবার মিডিয়ার নাকি “প্রতিদিন সরকারের বিরুদ্ধে না লিখলে তাদের ভাত হজম হয় না।” ছি ছি শেখ হাসিনা, আপনি না আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী!!!

এভাবে কথা বললেন আপনি!!!

ক্ষমতার সর্বোচ্চশৃঙ্গে থেকে আপনি যদি এভাবে বলেন তবে আপনার অনুসারীরা কি করবে? তাদের তো উৎসাহিত করলেন। সেক্ষেত্রে আপনার আরেকটি স্পষ্ট ভাষায় বলা উচিত ছিল। কেননা, বাধা না দিলে তো যা লেখা হবে তাই সত্য বলে গন্য হবে, পরে আপনাকে পস্তাতে হবে।

তাছাড়া আপনি বঙ্গবন্ধুর মেয়ে এইটা আপনার ভুলে গেলে চলবেনা, সবার উপদেশ শুনে বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া আপনার উচিত।

মানুষ আপনাকে এত ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসালো অনেক আশা নিয়ে। জনগনের জীবন যাপন নিয়ে মিথ্যা বাহাদুরি করে তার ফল ভাল হবে না, নির্বাচনের ফলাফলেই টের পাবেন আপনার কথা কেউ বিশ্বাস করে কিনা।

মিডিয়া সার্বিকভাবে জনগনের কথার প্রতিফলন প্রকাশ করে। (দলীয় মিডিয়ার কথা বলছিনা।)

আসলে কথা বলার সময় উনাকে কেউ থামায় না তো, প্রশ্নও করতে পারেনা, তাই যা খুশি বলে যান। এইজন্যেই উনাকে আমার মাঝে মাঝে মানসিকভাবে দুর্বল মনে হয়।

পুলিশের কার্যক্রমে, সাংবাদিক নির্যাতনসহ নানা ক্ষেত্রে ব্যর্থতায়, আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর গাধামির কারনে গত কয়েকদিনের জমে থাকা ক্ষোভ কুয়েত না কাতার থেকে ফিরে আজ তিনি উজাড় করে দিলেন সবার মাথায়। আবারও তিনি তার পছন্দ করা মন্ত্রীদের হয়ে সাফাই গাইলেন। সেখানে একটা সেমিনারে বুক ফুলিয়ে বলে আসলেন ন্যায়বিচার আর সুশাসনের কথা। আর দেশে এসে জনগনকে, আপনার ভোটারদের এসব কি বলছেন আপনি!!!

বিএনপি সময়ে সাংবাদিককদের কথা বলছেন? এমন তো এখনও হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকারদলীয় লোকদের কুকর্মের খবর দিয়ে অনেক সাংবাদিকই প্রানভয়ে থাকেন। ঢাকায় এই চাপ কম বলে উনি সারাদেশের উপর দিয়ে সেটা চালিয়ে দিলেন। কি যুক্তি!

গনহারে তিনি বললেন এই শহরে নাকি পত্রপত্রিকা, টিভি আর টক-শো দেখলে দেশের অন্যরকম চিত্র পাওয়া যায়। তাই নাকি??? তিনি তো বলবেনই! কারন মিডীয়ার সংবাদে সরকারের দুর্নীতি, ফাঁকিবাজি, চুরি-চামারি, প্রতারণা, অদক্ষতা সব প্রকাশ পেয়ে যাচ্ছে।

বিরোধী দলের লোকেরা টক-শোতে যাচ্ছেন এটা তারা মেনে নিতে পারছে না, আপনারা কেন টেবিলে আলোচনায় জিততে পারবেন না? সৎ হলে ভয় কিসের? আপনাদের কয়েকজন বড় নেতা তো নিয়মিতই যাচ্ছে। প্রায় সব টক-শোতেই বিভিন্ন দলের লোকজনকে ও বিশেষ করে অরাজনৈতিক, বিশেষজ্ঞ, আইনজীবী ও সাবেক আমলাদের এবং শিক্ষকদের নেয়া হয়। তারা কি সব গাধা, চাষাভূষো??? সব ভুল বলে? দেশের উল্টা চিত্র দেয়া মানুষকে? ভুল খবর প্রচার করে? হতাশাব্যঞ্জক বক্তব্য দিলেন আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

18 comments

  1. একটি দৈনিক সংবাদপত্রের এই রকম প্রথম পাতার ৩টি খবরে অস্পষ্টতা অথবা ভুল তথ্য। ভুল ধরলে আরও অন্তত ৩-৪ টি খবরে ভুল বের হবে। ভিতরের পাতাগুলোর কি অবস্থা? কি বুঝব? সংবাদ পরিবেশনায় ভুল আছে? প্রিন্টিং মিস্টেক? দৃষ্টিকোণে ভুল? দৃষ্টিকোণ হেলানো নাকি সঙ্কীর্ণ? কোন ধরনের এজেন্ডা আছে? যোগ্যতার অভাব? কি বুঝব আমি বল তো?

    Like

    • ভুল থাকলে অবশ্যি তা জানাতে হবে প্রতিবাদলিপি আকারে। একটা কাগজে বা ইমেইলে স্পষ্ট করে দেখিয়ে বলতে হবে কি ভুল আছে। রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ি পত্রিকাগুলোর নানা এজেন্ডা থাকে, তারা আবার জনগনকে দেখানোর জন্য অনেক সময় নিরপেক্ষ চেহারা নেবার চেষ্টা করে। কেউ কেউ আছে কম সুবিধাবাদী, পুরা ত্যাগী বা নিরপেক্ষ কোন মিডিয়া এই দেশে বিখ্যাত বা জনপ্রিয় হইতে পারে নাই।

      Like

  2. ////যুবককে পিটিয়ে নাক ফাটিয়ে দিলেন মহিলা দারোগা

    রাজশাহী নগরীর রাজপাড়া থানার ভেতর ঢুকে এক যুবককে পিটিয়ে আহত করেছেন জেলা পুলিশের এক মহিলা দারোগা (এসআই)। পিটুনির শিকার যুবকের নাম খোকন। তার বাড়ি নগরীর ভেড়িপাড়া এলাকায়। শনিবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। আদালতে কর্মরত জেলা পুলিশের দারোগা মৃণালিনী দে এ ঘটনা ঘটায়। ////

    প্রতিদিন বাংলাদেশের কয়েকশত থানা, পুলিশ ফাঁড়িতে এই রকম অসংখ্য ঘটনা ঘটছে। অথচ আজকে এই খবর একটি সংবাদপত্রের প্রথম পাতার খবর। কেন? পুলিশের উপর সাংবাদিকের প্রতিশোধ নাকি মহিলা এসআই হিন্দু বলে? কি জন্য? আমি কি বুঝব?

    Like

    • আমি যতটুকু বুঝি প্রথমত এটা ডেভেলপিং ইস্যু, ২য় কথা এটা আদালত এলাকায় ঘটেছে, তৃতীয়ত এসআই একজন মহিলা বলে এবং উনি আবার হিন্দু। আর যায় কোথায়?

      এবং এধরনের ঘটনা অসংখ্য ঘটেনা, মাঝে মাঝে হয়, মাসে ৪/৫টা। বেশিরিভাগ আবার জানা যায়না। উন্মুক্ত স্থানে ঘটলে খবর হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

      Like

  3. /////বাজেটের আকার ॥ বাড়ছে ১৫ %

    মিজান চৌধুরী ॥ আগামী ২০১২-১৩ অর্থবছরের বাজেটের আকার চলতি বছরের তুলনায় ১৫ শতাংশ বাড়ছে। সব প্রতিশ্রুতি পূরণের অঙ্গীকার থাকছে বাজেটে। পেনশন, সঞ্চয়পত্র ও ডিভিডেন্টের ওপর ট্যাক্স প্রত্যাহার হচ্ছে।/////

    পেনশন, সঞ্চয়পত্র আর ডিভিডেন্ডের উপর ট্যাক্স পুরো প্রত্যাহার সম্ভব নয়। আংশিক প্রত্যাহার হবে। এখন এই খবরে আমি কি বুঝব?

    Like

    • আমি কনফার্ম না এইটা সিদ্ধান্ত হয়েছে কিনা। পুরো খবরটা আমি পড়ি নাই। দেখি ভেতরে কি আছে।

      Like

  4. ////হবিগঞ্জের পল্লীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, গুলি আহত দেড় শ’
    মাছ ধরা ও অপহরণের জের

    আহত লোকজন চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ছুটে এলে ইউপি চেয়ারম্যান মুশফিউল আলম আজাদের ভাই ছাত্রলীগ পরিচয়ধারী কর্মী সোহেলসহ ২০/২৫ জনের সশস্ত্র এক দল যুবক দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে তাদের ওপর হামলা চালায়। তাতেও ওরা ক্ষান্ত হয়নি। এ সময় যুবকরা হাসপাতালের ইমার্জেন্সি সংলগ্ন ডক্টরস রুমসহ বেশ কয়েকটি স্থানের কাচের দরজা-জানালা ভাংচুর করে। এ সময় হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তার ও কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ রোগীরা প্রাণভয়ে এদিক-ওদিক ছুটে আত্মরক্ষা করেন। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।////

    কি বুঝব বল? এই খবরে আমি কি বুঝব? অস্পষ্ট কথা নয় কি? মুশফিউল আলমের ভাই কি আওয়ামী লীগ করে? একই পরিবারে ৪ পার্টির লোক দেখেছি আমরা যেমনটা দেখেছি একই পরিবারে মুক্তিবাহিনী আর শান্তিবাহিনীর লোক। এইখানে মুশফিউল আলমের ভাইয়ের নাম নেই, অথচ ছাত্রলীগ পরিচয়ধারী কর্মী সোহেলের নাম লেখা আছে। কি বুঝব? আচ্ছা, বাকি ২০-২৫ জন লোক কোন দলের? এই খবরে অস্পষ্টতা। দৃষ্টিকোণ ঠিক নেই। হেলানো দৃষ্টিভঙ্গি।

    Like

    • এটা একটা রাজনৈতিক সংঘর্ষের খবর যার সাথে সরকারি দলের লোকজন জড়িত। তাছাড়া একজন ইউপি চেয়ারম্যান আছেন এর পেছনে। চেয়ারম্যানের ভাই সোহেল, সে ছাত্রলীগ করে। এরা যেই দুই গ্রুপের মারামারি হয়েছে তাদের মধ্যে অপেক্ষাকৃত ক্ষমতাবান আর তাই তারা হাসপাতালেও হামলা করেছে। একজন ছাত্রলীগ নেতার পেছনে নিশ্চই ছাত্রলীগাররাই আছে। অথবা ওরা ভাড়া খাটে।

      এসময় আওয়ামী লীগ কোন ভুল করলেই পত্রিকা-টিভি ফলাও করে প্রচার করবে। সরকার যেহেতু সকল “ভিন্নমতাবলম্বীদের” ক্ষেপাচ্ছে, কাউকেই গুরুত্ব দিচ্ছেনা, সুতরাং যার যার অবস্থান থেকে অসহযোগ হবেই।

      এটা এক ধরনের নীরব-অহিংস বিপ্লব।

      Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s